ssc-http://www.onlinemathacademy.org

বীজগাণিতিক রাশি

◘  চলক ও প্রক্রিয়া চিহ্নের অর্থবোধক সংযোগ বা বিন্যাসকে বীজগণিতীয় রাশি বলা হয়।

◘ বীজগণিতীয় রাশির যে অংশ যোগ (+) ও বিয়োগ (-) চিহ্ন দ্বারা সংযুক্ত থাকে তাদের প্রত্যেকটিকে পদ বলা হয়। 5x + 3y একটি রাশি। এই রাশিটিতে 5x3y দুইটি পদ।

◘ কোনো একপদী রাশিতে চলকের সাথে যখন কোনো সংখ্যা গুণক হিসেবে যুক্ত থাকে, তখন ঐ গুণককে রাশিটির সাংখ্যিক সহগ বা সহগ বলে।

◘  যখন কোনো চলকের সাথে কোনো অক্ষর প্রতীক গুণক হিসেবে যুক্ত থাকে, তখন ঐ গুণককে রাশিটির আক্ষরিক সহগ বলে।

◘  একপদী রাশির সাথে কোনো সংখ্যা গুণক হিসেবে যুক্ত না থাকলে ঐ রাশির সহগ 1

সদৃশ ও বিসদৃশ পদ
◘   এক বা একাধিক বীজগণিতীয় রাশির অন্তর্ভুক্ত  যেসব পদের প্রতীকগুলো একই তারা সদৃশ পদ অন্যথায় পদগুলো বিসদৃশ।

◘  একাধিক পদের বীজগণিতীয় প্রতীকগুলো একই না হলে এবং সাংখ্যিক সহগ সমান হলেও সেগুলো বিসদৃশ পদ।

বীজগণিতীয় রাশির যোগ ও বিয়োগ
◘   দুই বা ততোধিক বীজগণিতীয় রাশি যোগ করতে হলে সদৃশ পদের সহগগুলো চিহ্নযুক্ত সংখ্যার নিয়মে যোগ করে বিসদৃশ পদসহ যোগফলে লিখতে হবে।

◘  দুইটি রাশির বিয়োগ করার সময় দ্বিতীয় রাশির প্রতিটি পদের চিহ্ন পরিবর্তন করে প্রাপ্ত রাশিটিকে প্রথম রাশির সাথে যোগ করতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here